১লা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
কুমিল্লা হাউজিং এলাকায় রাস্তার কাজের উদ্বোধন করেন মেয়র রিফাতকুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনের বিভিন্ন বিদ্যালয়ে শিক্ষাসামগ্রী বিতরণনিজের গলায় ছুরি চালিয়ে প্রাণ দিলেন প্রবাসীবর্ণিল আয়োজনে ড. মোশাররফ ফাউন্ডেশন কলেজে নবীন বরণকুমিল্লায় শশুর বাড়ি থেকে যুবকের ফাঁস দেয়া লাশ উদ্ধার, পরিবারের দাবি হত্যাকুমিল্লার চান্দিনায় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময়জামায়াতকে নিয়ে দেশ অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্র করছে বিএনপিঃ আ.জ.ম নাছিরকুমিল্লায় হত্যার ঘটনায় দুইজনের যাবজ্জীবন, আরেক আসামিকে খালাস২৯ দিনে মেট্রোরেলের আয় ২ কোটি ৪৬ লাখ টাকাবাস-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ, হাসপাতালে ৯

১৮ বছর পর এমপিও পেয়ে বাঁধভাঙ্গা আনন্দ প্রতিষ্ঠানে

১৪৫
header

মুরাদনগর প্রতিনিধি ।।

১৮ বছর পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিও পেয়ে বাঁধভাঙ্গা আনন্দে সংবর্ধণা দেওয়া হয়েছে। গত শনিবার কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার শ্রীকাইল ইউনিয়নের উত্তর পেন্নই দারুল ইসলাম দাখিল মাদরাসা মাঠে এক জমকালো আয়োজনে ওই অনুষ্ঠান হয়।

অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন, এফবিসিসিআই’র সাবেক সভাপতি ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন এমপি। মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা মুন্সী গোলাম হাক্কানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ডীন প্রফেসর ড. আক্তারোজ্জামান তপন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার অভিষেক দাশ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট আবুল কালাম আজাদ তমাল, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সরকার, যুবলীগ কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য মোহাম্মদ ইসমাইল, জেলা পরিষদ সদস্য ভিপি জাকির হোসেন, আওয়ামীলীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন এমপি বলেন, ১৮ বছর অপেক্ষার পর চট্টগ্রাম বিভাগের মধ্যে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি এমপিও হয়েছে। সবুরে মেওয়া ফলে এটা আরো একবার প্রতিয়মান হয়েছে। নৈতিক মূল্যবোধের আদলে আধুনিক শিক্ষা গ্রহণ করলে এ শিক্ষাই হবে টেকসই এবং মজবুত। আমি আশা করছি প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রতিষ্ঠিত এ প্রতিষ্ঠানটি আলোকিত মানুষ তৈরী করবে। যারা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে অগ্রনী ভূমিকা রাখবে।

মাদরাসার সহ-সুপার মাওলানা ইসমাইলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ও মাদরাসার সুপার মাওলানা গোলাম মোস্তফা।
মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা মুন্সী গোলাম হাক্কানী বলেন, এ অঞ্চলের মানুষের প্রধান ভরসা ছিল নৌকা। যার ফলে লেখাপড়া থেকে পিছিয়ে ছিল এ অঞ্চল। শিক্ষার আলো ঘরে ঘরে পৌঁেছ দেওয়ার লক্ষে আমি ১৮ বছর পূর্বে এ প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠা করি।

মাননীয় এমপি ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠানটি এমপিও হয়েছে। তিনি একটি চারতলা ডিজিটাল ভবনও বরাদ্দ দিয়েছেন। বেশ কয়েকটি রাস্তা তৈরী করে দেওয়ায় এ অঞ্চলের মানুষ স্বাচ্ছন্দে চলাফেরা করতে পারছে। এ কৃতজ্ঞতা থেকেই এমপি মহোদয়কে সংবর্ধণার আয়োজন এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমরা চির ঋণী হয়ে রইলাম।

After Related Post