৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সাবেক এমপি অধ্যক্ষ ইউনুসের রাষ্ট্রিয় মার্যাদায় জানাজা ও দাফন সম্পন্ন; বিভিন্ন মহলের শোক

নগর বাংলা২৪ ডট কম:
১০৩
header

মোঃ জহিরুল হক বাবু।।

কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসনের সাবেক ৪ বারের সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ মোঃ ইউনুস এর জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

সোমবার সকাল ৯ টায় কুমিল্লা টাউন হল, ১২ টায় ব্রাহ্মণপাড়া ভগবান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ, বাদ জোহর বুড়িচং আনন্দ পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ ও বিকেল ৪ টায় নিজ বাড়ী উপজেলার পীরযাত্রাপুর ইউনিয়নের গোপিনাথপুর গ্রামে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

সকাল ৯ টায় কুমিল্লা টাউনহল মাঠে জানাজায় কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কামরুল হাসানসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা অংশগ্রহন করেন।

দুপুর ১২ টায় ব্রাহ্মণপাড়া ভগবান সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজায়, উপজেলা বিএনপি, আওয়ামীলীগসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অংশগ্রহন করেন।
বাদ জোহর বুড়িচং আনন্দ পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজায় সর্বস্তরের জনতার ঢল নামে। অন্যানদের মাঝে জানাজায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক (কুমিল্লা অঞ্চল) মোস্তাক মিয়া, বুড়িচং উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট আবুল হাসেম খাঁন, উপজেলা চেয়ারম্যান আখলাক হায়দার, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন, কুমিল্লা দ. জেলা বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জসিম উদ্দিন, বুড়িচং উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোঃ মিজানুর রহমান, সোনার বাংলা কলেজের অধ্যক্ষ সেলিম রেজা সৌরভ, সাবেক পিপি এডভোকেট তাইফুর আলমসসহ বিভিন্ন দলের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

জানাজা পূর্বে নিহতের মরদেহে প্রশাসনের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রিয় ভাবে সম্মান প্রদর্শন করা হয়।

বাদ আসর মরহুমের নিজ বাড়ী বুড়িচং উপজেলার পীরযাত্রাপুর ইউনিয়নের গোপিনাথপুর গ্রামে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থান দাফন করা হয়।
প্রসঙ্গত, শনিবার রাত সাড়ে ৮ টায় ঢাকা বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ (পিজি) হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া) আসন থেকে চার বারের সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ মোঃ ইউনুস।

মৃতুকালে তিনি ৫ ছেলে ২ মেয়ে, নাতী-নাতনীসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি বুড়িচং উপজেলা সদরের এরশাদ ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ছিলেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্য জনিত কারণে অসুস্থ্য হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

১৯৭৩ সালে আওয়ামীলীগ থেকে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। ২০০১ সালে বিএনপি থেকে নির্বাচিত হন। সর্বশেষ ২০১৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহন করে পরাজিত হন।

After Related Post