২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মুজিববর্ষের উপহার “বলদাখাল দখলমুক্ত করার অঙ্গীকার-মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.)

নগর বাংলা২৪ ডট কম:
৮০
header

দাউদকান্দি প্রতিনিধি।।

দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.) এর উদ্যোগে,দাউদকান্দি পৌরসভার ৫,৬,৭ নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত বিলুপ্ত বলদাখাল দীর্ঘ ২০ বছর পর দখলমুক্ত করা হচ্ছে।এতদিন ধরে পানি নিষ্কাশনের সরকারি খালে পাড় বেঁধে মাছ চাষ,দখল করে বিভিন্ন স্হাপনা নির্মাণ করে আসছিলো একটি প্রভাবশালী মহল। এতে করে প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে স্থানীয় লোকজনকে জলাবদ্ধতায় দুর্ভোগ পোহাতে হতো। বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনরে নজরে আসলে গ্রামবাসীদের সঙ্গে নিয়ে খালটির ওপর তৈরি করা বাঁধ কেটে ও সাহাপাড়া গ্রামের ব্রীজের একপাশে ময়লা আবর্জনার স্তূপ সরিয়ে পানি প্রবাহের জন্য উন্মুক্ত করা হবে।

সোমবার (২২ র্মাচ) দুপুর ২টা থেকে দুপুর ৪টা পর্যন্ত উপজেলার পৌর এলাকার সাহাপাড়া,পশ্চিম মাইজপাড়া গ্রামে বেদখল হওয়া সরকারি খাল পরিদর্শন করেন দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.) এসময় উপস্থিত ছিলেন দাউদকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. আহসান হাবীব চৌধুরী লিল মিয়া, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম নয়ন, পৌর ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিল্লাল খন্দকার সুমন সহ স্হানীয় গ্রামবাসী ও নেতাকর্মীরা।

উপজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান মেজর মোহাম্মদ আলী (অব.) বলেন , দীর্ঘ ২০ বছর থেকে পানি প্রবাহের সরকারি খালে বাঁধ দিয়ে, ময়লা আবর্জনা ফেলে এলাকার একটি সংঘবদ্ধ প্রভাবশালী মহল ভোগদখল করে আসছিল। বিগত বছরে বলদাখালের ৭০ভাগ জায়গা বেদখলের হিড়িক পড়ে যায়।

এসময় তিনি আরো বলেন,আমার নিজ উদ্যোগে, মুজিববর্ষ উপলক্ষে, দাউদকান্দি পৌরবাসীর উপহার হবে এই বলদাখালের খনন করে দখলমুক্ত করা।
উল্লেখ্য,তিনি এসময় দাউদকান্দি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম নয়নকে ২ দিনের মধ্যে, ভেকু দিয়ে খাল খননের নির্দেশনা প্রদান করেন।

স্থানীয় এলাকাবাসীরা বলেন, বলদাখালের একপাশে নিজে এনে ঘরের ভিতর মাছ চাষ করা হচ্ছে, অন্যপাশে পুরোটা এরিয়া ময়লা আবর্জনা ফেলে জায়গা দখল করা হচ্ছে। এতে করে বর্ষা মৌসুমে চলাচলের পথ বন্ধ হয়ে যায়। সাধারণ মানুষ দীর্ঘদিন ধরে জলাবদ্ধতায় থাকেন। বেশিরভাগ বাড়িতে পানি ওঠায় ব্যাপক দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুল ইসলাম খান জানান, দীর্ঘদিন থেকে এই ঐতিহ্যবাহী বলদাখাল পুনঃ খনন না করায় এলাকায় প্রভাবশালী মহল অবৈধভাবে সরকারি খাল বন্ধ করে, বেদখল ও ভরাট করে বসতবাড়ি স্থাপন করে ফেলেছে। দাউদকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান সাহেবের লাইভ দেখলাম, ঐতিহ্যবাহী বলদাখালের পুনর্খনন করে, দৃষ্টিনন্দন লেক হিসেবে তৈরি করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

অভিযোগের ভিত্তিতে প্রমাণ পাওয়ায় এখানে অভিযান পরিচালনা করে জনস্বার্থে সরকারি খাল কেটে দেওয়া হবে। সরকারি সার্ভেয়ার দিয়ে দুই পাশের সরকারি সম্পত্তি মেপে, বেদখলকৃত সম্পত্তি , দখল করতে পূর্ন সহায়তা প্রদান করা হবে।

After Related Post