১লা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মনোহরগঞ্জে পোল্ট্রি ফার্মের মালিক মিজানুর রহমানের মাথায় হাত

নগর বাংলা২৪ ডট কম:
১৪৩
header

মোঃ মোতালেব হোসেন।

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলা দিশাবন্দ গ্রামের মো আবদুল আউয়াল এর মেজু ছেলে মো মিজানুর রহমান পোল্ট্রি ফার্মের ব্যবসা করে, অনেক টাকা লোসকান হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

মিজানুর রহমান বলেন, আমি দীর্ঘ সময় বিদেশে ছিলাম বিদেশ থেকে এসে যখন বেকার জীবন কাটাচ্ছি চার বছর ।পরে নিজের উদ্যোগে এই পোল্ট্রি ফার্ম ব্যবসা শুরু করি অল্প কিছু মোরগ দিয়ে । এখন আমার ফার্মে তিন চার হাজার মোরগের সেট আছে। এ কয়েক মাস ধরে আমি ব্যবসায় যে ভাবে লোকসান দিয়ে আসছি। ব্যবসা ধরে রাখার জন্য আমি প্রতিমাসে ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা লোকসান দিয়েও ব্যবসা করতেছি।

কিন্তু সরকারের কোন ধরনের সহায়তা পাচ্ছি না। আমরা যারা এই ব্যবসা করিতেছি সরকারের সহায়তা না পেলে দুই এক বছর এই ভাবে ব্যবসা চলতে থাকলে নিজের বসতবাড়ী বিক্রি করে হবে। দিশাবন্দ গ্রামের আর এক জন প্রবীণ পোল্ট্রি ফার্ম ব্যবসায়ী এবং মনোহরগঞ্জ বাজার কমিটির সেক্রেটারি মো ইসমাইল এর কাছে থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি দীর্ঘ ত্রিশ বছর এই ফার্ম ব্যবসা করে আসতেছি এই কয়েক মাস যেই ভাবে পোল্ট্রি ফার্ম ব্যবসায় লোকসান হচ্ছে, আমি আর কখনো এমন লোকসান হতে দেখি নাই।

এ বিষয়ে মনোহরগঞ্জ উপজেলা প্রানি সম্পদ কর্মকর্তা মো জুলহাস আহমেদ কাছে থেকে জানতে চাইলে তিনি জানান, বর্তমানে খাদ্য ওষুধ এবং মোরগের বাচ্চার দাম বৃদ্ধির কারণে খামারিরা ব্যবসায় করে লোকসান গুনতে হচ্ছে। দেশের মহামারী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ হলে এবং সরকারে পোল্ট্রি ফার্ম ব্যয়সায়ীর জন্য কিছু উদ্যোগ নিয়েছেন, এইগুলো বাস্তবায়িত হলে পোল্ট্রি ফার্ম ব্যবসায়ীরা লাভবান হবে।

After Related Post