৬ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কোম্পানীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ীদের সাথে এমপি ইউসুফ হারুনের মতবিনিময়

১১২
header

মুরাদনগর প্রতিনিধি।।

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী কোম্পানীগঞ্জ বাজারের ড্রেন, খাল ও পুকুর অবৈধ ভাবে ভরাট করে অবৈধ ভাবে তৈরী করেছেন ২১৬টি দোকান। তাই একটু বৃষ্টি হলেই পানিতে তলিয়ে যায় দোকান ও হাটার রাস্তা। গত বৃষ্টি মৌসুমে বাজারে জলাবদ্ধতার কারণে ব্যবসায়ীদের ২শ’ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। আর ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে দূর-দূরান্ত থেকে আসা ক্রেতা ও বিক্রেতাদের।

এবার বৃষ্টি মৌসুমে ব্যবসায় আবারো বড় ধরণের ক্ষতির আশংকায় ও বাজারের সার্বিক উন্নয়নে এফবিসিসিআই’র ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন এমপি ব্যবসায়ীদের সাথে মতবিনিময় করেছেন। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বুধবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের কবি নজরুল মিলনায়তনে ওই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অভিষেক দাশের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, বাজার কমিটির সভাপতি ও নবীপুর পশ্চিম ইউপি চেয়ারম্যান হাজী কামাল উদ্দিন, নবীপুর পূর্ব ইউপি চেয়ারম্যান কাজী আবুল খায়ের, আওয়ামীলীগ নেতা হেলাল উদ্দিন মজনু, জেলা পরিষদ সদস্য ভিপি জাকির হোসেন। উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর কবির, টনকি ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন ও জেলা পরিষদ সদস্য নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

ব্যবসায়ীরা বলেন, কোম্পানীগঞ্জ বাজার থেকে কুলুবাড়ি পর্যন্ত একটি খাল ছিল। যে খাল দিয়ে বাজারের বৃষ্টির পানি ও ময়লা-আবর্জনা নেমে যেত। সে খালের উপর এখন অবৈধ ভাবে ৭৬টি দোকান ঘর নির্মাণ করা হয়। অপর দিকে মুরগী বাজারের পূর্ব দিকের বড় পুকুরটি ভরাট করে ১৪০টি দোকান নির্মান করেছে প্রভাবশালী মহল। যেখানে প্রতিটি দোকানের মূল্য ওঠেছে ৮-১০ লাখ টাকা। এসব অবৈধ দখল ও অবস্থাপনার কারনে ঐতিহ্যবাহী বাজারটিতে বৃষ্টি মৌসুমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। অথচ এই বাজারটি মুরাদনগর তথা হোমনা, দেবিদ্বার, নবীনগর, বাঙ্গরা, কসবা, বুড়িচং ও ব্রা‏হ্মনপাড়াসহ বিভিন্ন উপজেলার মানুষের ব্যবসায়িক প্রাণকেন্দ্র। বাজারে থাকা আড়াই হাজার দোকানে প্রতি বছর কমপক্ষে ১৬ থেকে ১৭শ’ কোটি টাকা ব্যবসা হয়। গত বৃষ্টি মৌসুমে বাজারে জলাবদ্ধতার কারণে আমাদের প্রায় ২শ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে।

বাজার কমিটির সভাপতি কামাল উদ্দিন চেয়ারম্যান বলেন, বাজারের জলাবদ্ধতা নিরসনে ও সার্বিক উন্নয়নে প্রশাসন যে প্রদক্ষেপ নেয় আমি সে বিষয়ে একমত। অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করে কোম্পানীগঞ্জ-নবীনগর সড়কের পূর্বের খালটি উদ্ধার হলে বাজারের জলাবদ্ধতা নিরসন হবে।

সভায় এফবিসিসিআই’র সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন এমপি বলেন, বাজারের জলাবদ্ধতা নিরসনে আগামী রবিবার সড়ক ও জনপথ বিভাগ নবীনগর সড়কের অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করবে। বাজার ব্যবসায়ীদের স্বার্থে সুদূর প্রসারী পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। এতে সরকার যেমন রাজস্ব পাবে, তেমনি ফিরে আসবে বাজারের ঐতিহ্য। সার্বিক সহযোগিতায় সকলে এগিয়ে আসলে দ্রæত পরিকল্পনা বাস্তবায়ন সম্ভব হবে।

After Related Post