৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব পদক পেলেন ৫ নারীবঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কুমিল্লায় শিক্ষাবোর্ডের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালনকুমিল্লায় ব্ল্যাকমেইলিংয়ের অভিযোগে দুই যুবককে আটককুমিল্লায় তেল প‌রিমা‌পে কারচূ‌পি; দুই ফি‌লিং স্টেশনকে দেড় লাখ টাকা জরিমানাকুমিল্লায় ১৪৭ বোতল ফেন্সিডিলসহ এক মাদক কারবারি আটকজ্বালানি ও সারের দাম বৃদ্ধি উৎপাদনে প্রভাব ফেলবে নাঃ কুমিল্লায় কৃষিমন্ত্রীডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সবার সচেতনতা প্রয়োজনঃ মেয়র আতিকআগুনে ঘর পুড়ে ছাই, শোকে বৃদ্ধার মৃত্যুনোয়াখালীর বেগমগঞ্জে অস্ত্রসহ দুই যুবক গ্রেফতারবাসভাড়া বাড়লো মহানগরীতে প্রতি কিমি ৩৫, দূরপাল্লায় ৪০ পয়সা

কুমিল্লার বরুড়ায় দুই দিনে একই মাদরাসার তিন শিশু ছাত্রীকে ধর্ষণ!

নগর বাংলা২৪ ডট কম:
১৭
header

নেকবর হোসেন।।

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলায় দুই দিনে একটি আবাসিক মাদরাসার ১০ বছরের তিন শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণের শিকার তিন শিশু উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের নরিন্দ্র গ্রামের দুই পরিবারের। তারা সম্পর্কে চাচাতো বোন।

আলী আজ্জমের ছেলে আলী আকবরের(৫৫) বিরুদ্ধে তাদের ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় অভিযুক্ত আলী আকবরের বিরুদ্ধে বরুড়া থানায় দুইটি ধর্ষণ মামলা প্রক্রিয়াধীন।

সোমবার (২১ মার্চ) সন্ধ্যায় এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার মজুমদার।
ধর্ষণের শিকার শিশুদের স্বজনদের বরাতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান বলেন, স্থানীয় আবাসিক ও অনাবাসিক মিজবাহুল উলুম মহিলা ও নূরানী মাদরাসার শিক্ষার্থীরা মাঠে প্রতিদিন খেলাধুলা করতো। মাদরাসাটি স্থানীয় আলী আজ্জমের ছেলে আলী আকবরের বাড়ির থেকে তিনশো গজ দূরে । তাই মাদরাসা মাঠ থেকে প্রতিদিনই তারা ওই বাড়ির আশপাশে খেলতে যেতো। অভিযুক্ত আলী আকবর তার বাড়িতে দিনের বেশিরভাগ সময় একা থাকতো।

গত ১৯ ও ২০ মার্চও প্রতিদিনকার মতো শিশুরা মাঠে খেলতে নামে ও তার বাড়ির আশপাশে ঘুরতে যায়। এসময় তাদেরকে চকলেট ও ১০ টাকার প্রলোভন দেখিয়ে নিজ ঘরে নিয়ে যায় আলী আকবর। পরে শিশুদের ধর্ষণ করে। এদিকে ঘটনার পর থেকে আলী আকবর পলাতক রয়েছে। নির্যাতনের শিকার শিশুর পরিবারের সদস্যরা দায়ী ব্যক্তির বিরুদ্ধে সুষ্ঠু তদন্ত ও শাস্তি দাবি করছি।

এ বিষয় বরুড়া থানা অফিসার ইনচার্জ ইকবাল বাহার মজুমদার বলেন, তিন শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগের দুইটি মামলা প্রক্রিয়াধীন। এছাড়াও শিশুদের মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য আগামীকাল কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। আমরা অভিযুক্তকে আইনের আওতায় আনার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি।

After Related Post