১৮ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কলাপাড়ায় নির্বাচনী প্রচারণায় সংঘর্ষে দুই প্রার্থীসহ আহত ২০

নগর বাংলা২৪ ডট কম:
header

নগরবাংলা নিউজ ডেস্ক ||

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় চাকামাইয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রচারণাকে কেন্দ্র করে স্বতন্ত্র ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার (১১ ডিসেম্বর) রাত আটটার দিকে চাকাইয়া ইউনিয়নের বেতমোর বাজারে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নির্বাচনী প্রচারণা শেষে ঘোড়া প্রতীকের স্বতন্ত্রপ্রার্থী মজিবর ফকির তার সমর্থকদের নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় বেতমোর বাজারে পৌঁছলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হুমায়ুন কবির কেরামতের সমর্থকের মধ্যে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরেন।

আহতরা হলেন- স্বতন্ত্রপ্রার্থী মজিবর ফকির, তার ভাতিজা রনি ফকির ও হারুন মীর এবং নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হুমায়ুন কবির কেরামত, তার ছেলে হাসিবুল ইসলাম, সমর্থক হাসান গাজী, গোলাম মোস্তফাসহ অন্তত ২০ জন। তাদের মধ্যে স্বতন্ত্রপ্রার্থী মজিবর ফকিরের (৫০) তার দুই কর্মী রনি ফকির (৩৫) ও হারুন মীরকে (৪০) উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নৌকা সমর্থিত হাসান গাজী কলাপাড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

অন্যদিকে, ওই দিন বিকেলে উপজেলার টিয়াখালী ইউনিয়নের টিয়াখালী গ্রামে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্রপ্রার্থী সুজন মোল্লার সমর্থক ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মশিউর রহমান শিমুর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় নৌকা সমর্থিত চারজনসহ উভয়পক্ষের সমর্থকরা আহত হন। তবে নৌকা সমর্থকদের চারটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় স্বতন্ত্রপ্রার্থী সুজন মোল্লার ভাই জামাল মোল্লাসহ দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জসিম জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে বিকেলে ঘটনায় দু’জনকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনানুসারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

After Related Post