২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

টিকা নিলেন কুমিল্লা সদর আসনের – এমপি বাহার

নগর বাংলা২৪ ডট কম:
১৯২
header

সৈয়দ বদরুদ্দোজা টিপু।।

করোনা ভ্যাকসিনের মত অনেক ভ্যাকসিন নিয়েছি জীবনে৷ ভ্যাকসিনের অনুভূতি নাই৷ কুমিল্লার প্রিয় মানুষকে বলবো ভয়ের কোন কারন নাই৷ এই ভ্যাকসিন হচ্ছে জয় বাংলা ভ্যাকসিন৷ মুক্তিযুদ্ধে আমরা জয় বাংলা বলে দেশ স্বাধীন করেছিলাম৷ আজকেও আমরা এই ভ্যাকসিন কে বলব জয়বাংলা ভ্যাকসিন৷ আমরা এই করোনা যুদ্ধ, ভ্যাকসিন দিয়ে মোকাবেলা করবো এবং আমরা জয়ী হবো৷

কুমিল্লা সদর হাসপাতালের সিভিল সার্জন কার্যালয়’র সম্মেলন কক্ষে বুধবার সকালে করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পরে কথা গুলো বলেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার।


তিনি আরো বলেন, আমি আমার নির্বাচনী এলাকার মানুষকে বলবো আমরা রেজিস্ট্রেশনে প্রথম ছিলাম, শেষ অবধি প্রথম থাকতে চাই৷ ৪০ বছরের উর্ধে সবার জন্য ভ্যাকসিন উন্মুক্ত৷ আপনারা যত দ্রুত সময়ের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন করে আসবেন৷ আমাদের এখানে ২টি কেন্দ্র আছে৷ একটা সিভিল সার্জন অফিস ও অন্যটি কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল৷ যদি রেজিস্ট্রেশনের কারণে আরও কেন্দ্র বাড়াতে হয়, আমরা কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনকে অ্যাড করতে পারব, কোন সমস্যা নাই৷ কিন্তু আপনারা রেজিস্ট্রেশন করতে হবে৷ আমাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভ্যাকসিন আছে৷ কুমিল্লার মানুষের চাহিদা মোতাবেক আমরা ভ্যাকসিন এনে রেখেছি৷

এমপি বাহার বলেন, বিশ্বের অনেক উন্নত দেশ আজকে এই ভ্যাকসিন দিতে পারে নাই৷ আমরা আমাদের নেত্রীর সহানুভূতির কারণে দেশের চল্লিশোর্ধ সকল মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করেছি৷ আমি কুমিল্লা থেকে যে স্লোগান তুলেছিলেন কুমিল্লা এগুলে এগোবে বাংলাদেশ৷ আমরা রেজিস্ট্রেশনে দেখেছি প্রথম দিন যখন রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়, সারা বাংলাদেশে ৭৮ হাজার মানুষ রেজিস্ট্রেশন করেছে৷ কুমিল্লায় প্রথম দিন ২২ হাজার মানুষ রেজিস্ট্রেশন করেছে৷ কুমিল্লায় প্রথম দিন থেকে শুরু করে আজ অবধি আমার মনে হয় একটা কেন্দ্র হিসেবে কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন কেন্দ্রে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করেছে৷

তিনি আরো বলেন, আমরা বিশ্বাস করি যে এই ভ্যাকসিন জাতিকে করোনামুক্ত করবে, আমাদের দেশের সকল মানুষকে করোনামুক্ত করবে৷ আমরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার এই উদ্যোগের জন্য কুমিল্লার সকল মানুষের পক্ষ থেকে উনাকে কৃতজ্ঞতা এবং ধন্যবাদ জানাচ্ছি৷ আমাদের যে ডাক্তাররা করোনা কালীন সময়ে জীবন দিয়েছে তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি৷ যারা এই ভ্যাকসিন কার্যক্রম থেকে শুরু করে পিসিআর ল্যাব এ কাজ করে তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা এবং ধন্যবাদ জানাচ্ছি৷

এসময় উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান, কুমিল্লা জেলা স্বাচিপ ও বিএমএ’র সভাপতি ডা. আবদুল বাকী আনিছ, কুমিল্লা জেলা বিএমএ’র সেক্রেটারি ডা. আতাউর রহমান জসিম, স্বাচিপ’র সাধারণ সম্পাদক ডা. মোর্শেদুল আলম, শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. মোস্তাক আহমেদ, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. শাহাদাৎ হোসেন, মেডিকেল অফিসার ডা. সৌমেন রায়, ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর আল আমিন সাদী, সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. অমৃত কুমার দেবনাথ, সহকারী সার্জন ডা. এনামুল হক প্রমুখ৷

পরে ভ্যাকসিন নেন ডা. আতাউর রহমান জসিম, ডা. মোর্শেদুল আলম, ডা. মোস্তাক আহমেদ, কুমিল্লা পল্লী উন্নয়ন একাডেমীর উপ-পরিচালক কাজী সোনিয়া রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম জুয়েল, এমপি বাহারের সিকিউরিটি অফিসার মনির হোসেন৷

After Related Post