১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অসুস্থ মাকে ডাক্তার দেখানোর কথা বলে রাস্তায় ফেলে গেলেন ছেলে ও তার স্ত্রী

নগর বাংলা২৪ ডট কম:
২৫
header

নগরবাংলা নিউজ ডেস্ক।।

অসুস্থ এক বৃদ্ধাকে ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে এনে রাস্তায় ফেলে গেছেন ছেলে ও তার স্ত্রী। পরে বিষয়টি জানতে পেরে ওই বৃদ্ধাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন কয়েকজন যুবক।

সোমবার (১৮ জুলাই) রাতে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন বরিশাল-ঢাকা মহাসড়ক থেকে ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করা হয়। বর্তমানে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছেন তিনি।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) দুপুরে হাসপাতালে কথা হলে বৃদ্ধা জানান তার নাম মাজেদা বেগম। স্বামীর নাম চাঁন মিয়া মৃধা। স্বামী অনেক আগেই মারা গেছেন। ছেলে শাহে আলম মৃধার সঙ্গে পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলায় থাকতেন বলে জানিয়েছেন বৃদ্ধা মাজেদা। এর বেশি কিছুই বলতে পারছেন না তিনি।

বৃদ্ধা মাজেদা বেগম জানান, বার্ধক্যজনিত কারণে কয়েকদিন আগে তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর সোমবার সকালে ডাক্তার দেখানোর কথা বলে ছেলে ও ছেলের বউ তাকে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। বিকেলে গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন বারিশাল-ঢাকা মহাসড়কে তাকে রেখে কৌশলে সটকে পড়েন তারা।

তিনি আরও জানান, শারীরিক দুর্বলতা ও অসুস্থতার কারণে কয়েকদিন ধরে চলাফেরা করতে পারছেন না। কয়েক পা হাঁটলেই কষ্ট হয়। সে কারণে বাড়ি ফিরে যাওয়া তার পক্ষে সম্ভব ছিল না। তাছাড়া তিনি বাড়ির ঠিকানাও ঠিকমতো জানেন না। দীর্ঘক্ষণ রোদে বসে থাকার কারণে শরীরের ব্যথা শুরু হয় ও অসুস্থ বোধ করেন তিনি। একসময় সড়কের ওপর তিনি শুয়ে পড়েন।

বাটাজোর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন বাংলালিংক টাওয়ারের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আ. করিম জানান, টাওয়ারের গার্ড রুমে তিনি ও তার স্ত্রী বসবাস করেন। ওই বৃদ্ধাকে অচেতন অবস্থায় সোমবার রাতে টাওয়ারের কাছে মহাসড়কের পাশে পেয়ে স্থানীয়রা তাদের কাছে রেখে যান। পরবর্তীতে সোমবার দিনগত রাত একটার দিকে বৃদ্ধাকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন স্থানীয় বাসিন্দা ও আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মো. শিপন।

জানতে চাইলে মো. শিপন বলেন, বাটাজোর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন বারিশাল-ঢাকা মহাসড়কে এক বৃদ্ধাকে ফেলে যাওয়ার বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জানতে পারি। এরপর কয়েকজন বন্ধু মিলে বাংলালিংক টাওয়ারের রুম থেকে বৃদ্ধাকে নিয়ে গিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি। তখন বৃদ্ধার শরীরে প্রচণ্ড জ্বর ছিল।

গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. তৌকির আহম্মেদ জানান, ওই বৃদ্ধা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। তার শরীর অনেক দুর্বল। বয়সের কারণে নানা রোগে আক্রান্ত। শরীরে জ্বর রয়েছে। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিপিন চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, বিষয়টি খুবই অমানবিক ও দুঃখজনক। বিষয়টি জানার পরে বৃদ্ধা মাজেদা বেগমের প্রয়োজনীয় চিকিৎসার জন্য স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকদের অনুরোধ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বৃদ্ধা মায়ের প্রতি যে অন্যায়- অবিচার আচরণ করা হয়েছে এ জন্য যারা দায়ী, তাদের ঠিকানা খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

After Related Post